...

ইসলামে জ্বীন সম্পর্কে তথ্য

57 views

হ্যালো বন্ধুরা । কেমন আছেন সবাই? আসা করি আল্লাহর রহমতে অনেক ভালো আছেন । আজকে আবারও একটি নতুন ইসলামে জ্বীন সম্পর্কে তথ্য পোস্ট নিয়ে হাজির হলাম ।

আরবিতে জ্বীন শব্দের অর্থ গুপ্ত, আড়াল, অন্তরাল, পর্দা, গোপন, অদৃশ্য, লুকায়িত, আবৃত প্রভৃতি। আর যেহেতু এ জাতি মানুষের চক্ষুর অড়ালে থাকে, তাই তাদেরকে জ্বীন বলে।

মহান আল্লাহ্ তা‍‍’আলা কোরআনে উল্লেখ করেছেন: ‍‍‘নিশ্চয় আমি মানুষকে সৃষ্টি করেছি কালো পচা শুষ্ক ঠনঠনে মাটি হতে। আর এর পূর্বে জ্বীনকে সৃষ্টি করেছি ধূম্রহীন বিশুদ্ধ অগ্নি হতে।‍‍’ -(সূরা আল হিজ্বর, আয়াত: ২৬-২৭)

ইসলামে জ্বীন সম্পর্কে তথ্য

  • জ্বীনগুলি আগুনের ধোঁয়াহীন মিশ্রণে তৈরি।
  • জ্বীনদের কোন আসল আকৃতি নেই এবং তারা যে কোন কিছুর আকৃতি ধারণ করার ক্ষমতা রাখে। তারা কুকুর এবং সাপ বা এমন কিছুর আকার ধারণ করে যা মানুষকে আতঙ্কিত করে, যদিও তারা আসলে সেভাবে দেখায় না।
  • জিনরা একটি সমান্তরাল মহাবিশ্ব/মাত্রায় বাস করে, মানুষের চোখের অদৃশ্য থাকা অবস্থায় তাদের আমাদের মাত্রা দেখার ক্ষমতা দেয়।
  • জ্বিনরা মৃত মানুষের আকারেও আবির্ভূত হতে পারে। ভূত এবং আত্মার অস্তিত্ব নেই; তারা আসলে মৃত মানুষের আকৃতি ধারণ করা জ্বিন।
  • জ্বীনরা আমাদের মত বাস করে; তারা আমাদের মতই খায়, পান করে এবং বিয়ে করে।
  • জ্বীনরা আলোর গতিতে ভ্রমণ করে। এটি মিলিসেকেন্ডে 2340 কিমি, তাই মূলত তারা o_0 টেলিপোর্ট করতে পারে
  • যদিও জ্বিনরা শারীরিকভাবে শক্তিশালী, তারা বুদ্ধিগতভাবে মানুষের চেয়ে শক্তিশালী নয়। এ কারণে ইবলিসকে আদমকে সেজদা করতে বলা হয়েছিল।
  • জ্বিনরা আমাদের চেয়ে অনেক বেশি দিন বাঁচে, হাজার হাজার বছর। 
  • জ্বীনের বিভিন্ন প্রকার রয়েছে। প্রতিটি ধরনের একটি ভিন্ন শক্তি বা ক্ষমতা আছে.
  • জ্বিনরা আপনার রক্তের মতো আপনার মধ্য দিয়ে দৌড়াতে পারে 
  • জ্বিনরা আমাদের অবশিষ্ট খাবার যেমন মাছ এবং মুরগির হাড় ইত্যাদি খায়।
  • মুসলিম ও অমুসলিম জ্বীন আছে। মুসলিম জ্বিন আমাদের ক্ষতি করে না। অমুসলিম জিনরাই আমাদের ক্ষতি করে।
  • অমুসলিম জ্বিনরা নোংরা, নোংরা কাজ এবং নোংরা স্থানের প্রতি আকৃষ্ট হয়।
  • একমাত্র হযরত সুলাইমানকে জিন নিয়ন্ত্রণ করার ক্ষমতা দেওয়া হয়েছিল
  • যাদুকরদের কুফর ও শিরক করতে হবে পবিত্রতাপূর্ণ ও অপমানজনক কাজ করে, যাতে জ্বিনরা জাদুকরের উপকার করতে পারে।
  • আপনি যখন যাদু করেন, আপনি আপনার আত্মাকে জ্বীনের কাছে বিক্রি করেন স্বয়ংক্রিয়ভাবে আপনাকে ইসলামের ভাঁজ থেকে বের করে দেন, যেহেতু আপনি একই সাথে আল্লাহর উপাসক হতে পারেন না।
  • গঠন অনুযায়ী তিন ধরনের জ্বীন আছে- এক প্রকারের জ্বীন পাখার মাধ্যমে বাতাসে ওড়ে। এক প্রকারের জ্বীন সাপ, বিচ্ছু, পোকা-মাকড় এবং মাকড়শার আকারে থাকে।
  • শেষ প্রকারের জ্বীনরা সাধারণভাবে থাকে এবং চলাচল করে।

তাই দেখা যায়, ধর্মীয় ব্যাপারে উদাসীন লোকেরাই জ্বীন ও শয়তানের  কুপ্রভাব ও কুমন্ত্রণার শিকার হয়ে থাকে।

হাদিসে পাকে বর্ণিত হয়েছে, টয়লেটে প্রবেশের দোয়া পাঠ না করলে দুষ্ট জ্বীনরা তার গোপনাঙ্গ নিয়ে খেলা করে। অনুরূপ খাদ্য গ্রহণের শুরুতে ‘বিসমিল্লাহ’ না পড়লে খারাপ জ্বীন তার খাদ্যে অংশগ্রহণ করে।

মহান আল্লাহ আমাদের জ্বীন ও শয়তানের কুপ্রভাব থেকে হেফাজত করুন। আমিন।

বনি ইসরাইলের তিন ব্যক্তি ও ফেরেস্তার ঘটনা

BloginfoBD

আমি মোঃ সজিব মিয়া । কাজ করছি Bloginfobd, FST Bazar, FST IT , FST Telecom ওয়েবসাইটে ।


Leave a Comment

Seraphinite AcceleratorOptimized by Seraphinite Accelerator
Turns on site high speed to be attractive for people and search engines.